বাংলাদেশের নদ- নদী সমূহের তালিকা

আজকে আমরা জানবো বাংলাদেশের নদ-নদী সম্পর্কিত সাধারণ জ্ঞান  । এই টপিক থেকে প্রায় সকল ধরনের প্রতিযোগিতা মুলক পরীক্ষায় প্রশ্ন আসে।

বাংলাদেশের নদ- নদী সমূহের তালিকা

নদ- নদী সমূহের তালিকা

১।বাংলাদেশের নদ- নদী সংখ্যা কত?

উঃ- ৭০০ টি( সূত্র – ভূগল মাধ্যমিক) নোট- অপশনে ৭০০ না থাকলে উত্তর হবে ২৩০ টি)

২।বাংলাদেশে প্রবাহিত আন্তর্জাতিক নদীর সংখ্যা কত?

উঃ- ৫৭ টি(সূত্র – যৌথ নদী কমিশন)

৩।বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে অভিন্ন নদী কয়টি?

উঃ- ৫৪ টি ( যৌথ নদী কমিশন)

৪।বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে নদী কয় টি?

উঃ- ৩ টি।

৫।বাংলাদেশের জলসীমায় উৎপত্তি ও সমাপ্ত নদীর নাম কি?

উঃ- হালদা ও সাঙ্গু নদী।

৬।বাংলাদেশের কোন নদী কে চিরযৌবনা নদী বলা হয়?

Read  বাগধারা বলতে কি বুঝায় - চাকরির প্রস্তুতি

উঃ- মেঘনা।

৭।বাংলাদেশের দীর্ঘতম নদী / প্রশস্ততম নদী/ গভীরতম নদী কোন টি?

উঃ- মেঘনা। ৮। বাংলাদেশের খরস্রোতা নদী কোন টি?

উঃ- কর্ণফুলী নদী। ৯।বাংলাদেশের দীর্ঘতম নদ কোন টি?

উঃ- ব্রক্ষপুত্র। ১০। কোন কোন দেশের উপর দিয়ে ব্রক্ষপুত্র প্রবাহিত হয়?

উঃ- বাংলাদেশ, ভারত,চীন। ১১।কোন জেলা দিয়ে ব্রক্ষপুত্র বাংলাদেশে প্রবেশ করে।

উঃ- কুড়িগ্রাম জেলা দিয়ে। ১২।বাংলাদেশ- মায়ানমার কে বিভক্তকারী নদীর নাম কি?

উঃ- নাফ নদী। দৈর্ঘ ৫৬ কি. মি.। ১৩।বাংলাদেশ ও ভারত কে বিভক্তকারী নদীর নাম কি?

উঃ- হাড়িয়াভাঙ্গ। ১৪।মেঘনা কি কি নামে বিভক্ত হয়েছে?

উঃ- সুরমা কুশিয়ারা। ১৫।কর্ণফুলী নদী কোন দিক দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে?

উঃ- পার্বত্য চট্রগ্রাম দিয়ে। ১৬।কর্ণফুলী নদী কোথায় পতিত হয়েছে?

Read  চাকরির পরীক্ষার প্রস্তুতি যেভাবে নিবেন।

উঃ- বঙ্গোপসাগরে। ১৭।এক কিউসেক বলতে কি বুঝায়?

উঃ- প্রতি সেকেন্ডে এক ঘনফুট পানির প্রবাহ।

১৮।বাংলাদেশের কৃত্রিম হ্রদ কোন টি?

উঃ- রাঙ্গামাটি জেলার কাপ্তাই হ্রদ।

১৯।বাংলাদেশ হতে ভারতে গিয়ে পূনরায় বাংলাদেশে প্রবেশ করা নদীর নাম কি?

উঃ- আত্রাই ও মহানন্দা। ২০।বাংলাদেশ হতে ভারতে প্রবেশকারী একমাত্র নদীর নাম কি?

উঃ- কুলিখ নদী।

বাংলাদেশের প্রধান নদ – নদীসমূহের উৎপত্তি স্থল

-পদ্মা নদীর উৎপত্তি – হিমালয়ের গাঙ্গেত্রী হিমবাহ থেকে।

-মেঘনা- আসামের লুসাই পাহাড় থেকে।

– ব্রাহ্মপুত্র- তিব্বতের হিমালয়ের কৈলাশ শৃঙ্গের নিকটে মানস সরোবর হ্রদ।

-যমুনা- ময়মনসিংহের দেওয়ানগঞ্জের নিকট ব্রাহ্মপুত্র যমুনা নামে পরিচিত।

-কর্ণফুলী – আসামের লুসাই পাহাড়ের লংলেহ থেকে।

-সাঙ্গু-মিয়ানমারের আরকান পাহাড় থেকে।

নাফ- মিয়ানমারের আরকান পাহাড় থেকে।

Read  ঢাকা মুসলিম সাহিত্য সমাজ - চাকরির পরীক্ষা প্রস্তুতি

মাতামহূরী-লামার মইভার পর্বত। -তিস্তা -ভারতের সিকিমের পার্বত্য অঞ্চল থেকে।

করতোয়া – সিকিমের পার্বত্য অঞ্চল থেকে

মহানন্দা- হিমালয় পর্বতমালার মহালদিরাম পাহাড় থেকে।

মুন- ভারতের মিজোরামের পাহাড় থেকে।

মূহরী- ভারতের ত্রিপুরার লুসাই পাহাড় থেকে।

গোমতী- ভারতের ত্রিপুরার পাহাড়ের সাবরুম থেকে।

বরাক- আসামের লুসাই পাহাড় থেকে।

শীতলক্ষ্যা – পদ্মানদী৷ থেকে।

বুড়িগঙ্গা – ধলেশ্বরী নদী থেকে।

বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ কিছু নদীর পূর্বনাম বা অন্য নাম।

  • পদ্ধা – কীর্তিনাশা
  • যমুনা- জোনাই নদী
  •  ব্রহ্মপুত্র- লোহিত্য
  • বুড়িগঙ্গা – দোলাই নদী/ দোলাই খাল।

আমাদের সাথে থাকার জন্য আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাই,সকল কে। আশাকরি আমাদের চেষ্টা আপনাদের কাজে আসবে।

তথ্য সূত্র-

উইকিপিডিয়া

বাংলাপিডিয়া

BCS Preliminary Analysis-গাজী মিজানুর রহমান

Leave a Comment

You cannot copy content of this page