চর্যাপদ (সাহিত্যের আদিযুগ) -চাকরির প্রস্তুতি

আসসালামু ওয়ালাইকুম, সবাই কেমন আছেন? আশাকরি ভালো থাকার চেস্টায় আছেন। আজকে বাংলা সাহিত্যের চর্যাপদ (সাহিত্যের আদিযুগ) থেকে যে সকল প্রশ্ন প্রায় সব ধরনের প্রতিযোগিতা মূলক পরীক্ষায় আসে,সেই প্রশ্ন এবং উত্তর থাকবে এই পোস্টে। আশাকরি সকলে উপকৃত হবেন।

১) বাংলা সাহিত্যের আদি নিদর্শন কি? উঃ- চর্যাপদ ।(কিন্ত সর্বজন স্বীকৃত বাংলা সাহিত্যের আদি নিদর্শন – শ্রীকৃষ্ণকীর্তন কাব্য)

২)চর্যাপদ শব্দটির অর্থ কি?

উঃ- জীবন যাপনের পদ্ধতি কে চর্যা বলে। চর্যা থেকে বর্তমানে চর্চা শব্দের উৎপত্তি। পদ অর্থ চরণ বা পা।চর্যাপদ শব্দ টির অর্থ দাঁডায়, জীবন যাপনের পদ্ধতি বা আচরণ যে কবিতায় বা চরণে লিখিত থাকে। অর্থাৎ চর্যাপদ এর মূল অর্থ হলো- কোনটি আচরণীয়,কোনটি আচরণীয় নয়।

৩)চর্যাপদের প্রকৃত নাম কী?

উঃ- চর্যাচর্যবিনিশ্চয়।

৪) চর্যাপদ মূলত কি ধরনের গ্রন্থ?

Read  জ্বালানি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন ও উত্তর।

উঃ- কবিতা সংকলন বা গানের সংকলন।

৫) চর্যাপদের রচয়িতা কারা?

উঃ- বৌদ্ধ সিদ্ধাচার্যগণ/ বৌদ্ধ সহজিয়াগণ।

৬) চর্যাপদ মূলত কোন ধর্ম নিয়ে রচিত?

উঃ- বৌদ্ধ ধর্ম নিয়ে।

৭) কোন আমলে চর্যাপদ রচিত?

উঃ- পাল রাজাদের আমলে।

৮) চর্যাপদ রচনায় কারা পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন?

উঃ- পাল রাজারা।

৯) চর্যাপদ কোন প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষকতায় পুনরুদ্ধার করা হয়েছ।

উঃ- বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ।

১০) চর্যাপদের আবিষ্কারক কে?

উঃ- মহামহোপাধ্যায় হরপ্রসাদ শাস্ত্রী।

১১) কোন স্থান থেকে চর্যাপদ আবিষ্কার করা হয়?

উঃ- নেপালের রাজ দরবারের গ্রন্থশালা / নেপালের রয়েল লাইব্রেরি।

১২) চর্যাপদ কত সালে আবিষ্কার করা হয়?

উঃ-১৯০৭ সালে।

১৩) চর্যাপদ কত সালে প্রকাশিত হয়?

উঃ- ১৯১৬ সালে বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ থেকে হরপ্রসাদ শাস্ত্রী সম্পাদনায় হাজার বছরের পুরাণ বাঙ্গালা ভাষার বৌদ্ধগান ও দোহা নামে।

Read  বাংলা ভাষা নিয়ে প্রশ্ন ও উত্তর

১৪)চর্যাপদের মোট পদ সংখ্যা কতটি?

উঃ- ৫১ টি।

১৫) চর্যাপদের আবিষ্কৃত পদ সংখ্যা কতটি?

উঃ- সাড়ে ছেচল্লিশটি।

১৬)চর্যাপদ কোন চন্দে রচিত?

উঃ- মাত্রাবৃত্ত। ( মনে রাখুন এভাবে – চর্যাপদ বাংলা সাহিত্যে নতুন মাত্রা যোগ করে)।

১৭) চর্যাপদের ভাষা কী?

উঃ- সন্ধা বা সান্ধ্য ভাষা।

১৮) চর্যাপদের কবির সংখ্যা / পদকর্তা কতজন?

উঃ- ২৩ জন। চর্যাপদে খন্ডিত আকারে প্রপ্ত পদটিও ২৩ নং।

১৯) চর্যাপদের আদি কবি কে?

উঃ- লুইপা।

২০)চর্যাপদের সর্বাধিক পদ রচয়িতা কে?

উঃ- কাহ্নপা(১৩ টি)।

২১) কোন কবি নিজেকে বাঙ্গালী বলে পরিচয় দিয়েছেন?

উঃ- ভুসুকুপা।

২২) চর্যাপদ কোন কবির কোন পদ পাওয়া যায় নি?

উঃ- তন্দ্রীপা।

২৩) চর্যাপদের শ্রেষ্ঠ কবি কে?

উঃ- শবরপা।

২৪) চর্যাপদের নারী কবি কে?

Read  বাংলাদেশের ঐতিহাসিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও স্থানের তালিকা।

উঃ- কুক্করীপা।

২৫) ডক্টর মুহাম্মদ শহিদুল্লাহর মতে চর্যাপদের আদি কবি কে?

উঃ- শবরপা।

২৬) চর্যাপদের ইংরেজি অনুবাদের নাম কী?

উঃ- হাসনা জসীমউদ্দিন মওদুদ।

২৭) চর্যাপদের ইংরেজিতে অনুদিত গ্রন্থের নাম কি?

উঃ- Mystic Poetry of Bangladesh.

২৮)চর্যাপদের উপর রচিত ডক্টর মুহাম্মদ শহীদুল্লার গবেষণামূলক গ্রন্থের নাম কী?

উঃ- Buddhist Mystic Song.

২৯)চর্যাপদের ভাষা বাংলা এটি সর্বপ্রথম প্রমাণ করেন কে?

উঃ- সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়।

৩০) কে চর্যাপদের পদ গুলো টীকার মাধ্যমে ব্যাখ্যা করেন?

উঃ- মুনিদত্ত।

উপরের দেয়া প্রশ্নগুলোর উত্তর যদি আপনার জানা থাকে, তাহলে বাংলা সাহিত্যের চর্যাপদ (সাহিত্যের আদিযুগ) সম্পর্কিত আর কোনো প্রশ্ন পড়া লাগবে না আপনার। যে কোন চাকরীর পরীক্ষায় এই থেকেই ঘুরেফিরে আশে।ধন্যবাদ সকলকে।

তথ্য সূত্র-

উইকিপিডিয়া

বাংলাপিডিয়া

BCS Preliminary Analysis-গাজী মিজানুর রহমান

Leave a Comment

You cannot copy content of this page